নির্বাচনের ৮ দিন পর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকারের বাসায় গেলেন গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নব নির্বাচিত মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম। জাহাঙ্গীর আলম ও হাসান উদ্দিন সরকারের দেখা হতেই তারা একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি ও কুশল বিনিময় করেন। পরে তারা একে অপরকে মিষ্টিমুখ করান।
বুধবার দুপুরে জাহাঙ্গীর আলম তার ছয়দানাস্থ বাস ভবন থেকে বের হয়ে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে হাসান উদ্দিন সরকার প্রতিষ্ঠিত টঙ্গীর মরহুম আহসান উল্লাহ সরকার ইসলামিক ফাউন্ডেশনে যান। নব নির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলম দেখা করতে যাবেন এমন খবর পেয়ে আগে থেকেই নিজ ফাউন্ডেশনের দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে অবস্থান করতে থাকেন হাসান উদ্দিন সরকার। এ সময় জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে নির্বাচিত দলীয় কিছু কাউন্সিলরও উপস্থিত ছিলেন।
পরে জাহাঙ্গীর আলম তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমি দায়িত্ব পালনকালে হাসান উদ্দিন সরকারের সঙ্গে সব সময় পরামর্শ ও তার সহযোগিতা কামনা করব। সকলে মিলেমিশে এ নগরীর উন্নয়নে কাজ করব। এলাকার উন্নয়নে সকলে হাতে হাত ও কাঁধে কাঁধ রেখে এক সঙ্গে মিলেমিশে উন্নয়ন কাজ করে যাব। সবার সহযোগিতায় একটি সুন্দর পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে চাই। নগরীতে একটি শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখব।
এদিকে হাসান উদ্দিন সরকার নব নির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের উদ্দেশ্যে বলেন, নির্বাচনের পূর্বে জনগণকে যে ওয়াদা দিয়েছিলেন তা যেন বাস্তবায়ন করা হয়।
তিনি জাহাঙ্গীর আলমের সকল ভালো কাজে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করে বলেন, গাজীপুর শিক্ষায় পিছিয়ে ছিল। ভাওয়াল রাজার শাসনামলে হিন্দু ছাত্ররা ক্লাসে সামনের সারিতে বসতো। আর মুসলমান ছাত্ররা পিছনে বা মাটিতে চটের মধ্যে বসে লেখাপড়া করতো। গাজীপুরের জনগণকে শিক্ষিত করার জন্য অর্ধশতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছি। তিনি নগরীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি লক্ষ্য রাখার জন্য মেয়রের প্রতি আহ্বান জানান।
তিনি বলেন, প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতরা যদি এক সঙ্গে কাজ করেন তাহলে যানজটের দুর্ভোগ থেকে নগরবাসীকে রক্ষা করা সম্ভব। নগরীর আইনশৃঙ্খলা ও শিক্ষার ব্যাপারে সব সময় সহযোগিতা করে যাব।
পরে হাসান উদ্দিন সরকার জাহাঙ্গীর আলমের মাথায় হাত বুলিয়ে আশির্বাদ করেন।latestbdnews

News Page Below Ad