ছবি: প্রতীকী
’৯৯৯’-এ ফোন করে নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া দুই ছাত্রীর পরিবার দুর্বৃত্তদের ভয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে।
চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের সোমবারের এ ঘটনায় বুধবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেল পর্যন্ত অভিযুক্তকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। সবশেষ মঙ্গলবার রাতে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই দুই ছাত্রীর মা।
তবে, বুধবার সকাল ১১টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে পাওয়া যায়নি ওই পরিবারের কাউকে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলওয়ার হোসেন বলেন, ঘটনাটি ধর্ষণের চেষ্টা নয়। ইভটিজিংয়ের ঘটনা নিয়ে বখাটেরা মেয়ের মাকে মারধর করেছে। তিনি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। বখাটেদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।
বুধবার রাতে এ ঘটনায় একটি মামলা হবে বলে জানান তিনি।
দুই ছাত্রীর বাবা মোবাইল ফোনে জানান, তার তিন মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়ে উপজেলার একটি এলাকায় থাকেন তিনি। তিনি চায়ের দোকন করেন। তার বড় মেয়ে অষ্টম শ্রেণিতে, মেজো মেয়ে সপ্তম শ্রেণিতে এবং ছোট মেয়ে দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়ে।
তিনি বলেন, সাইফুল ইসলাম নামে এক বখাটে চারজন সহযোগী নিয়ে গত সোমবার রাতে তার ঘরে ঢুকে বড় দুই মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় তার স্ত্রী বাধা দিলে তার শিশু কন্যাসহ চারজনকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করে। খবর পেয়ে তিনি ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চান। কয়েকবার পুলিশ ঘটনাস্থলেও যায়। তবে পুলিশ তার বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর লাঠিসোটা নিয়ে তার আবার হামলা চালায়। আরও হামলার আশঙ্কায় অন্যত্র চলে গেছেন বলে জানান তিনি।
দুই ছাত্রীর বাবা বলেন, ’আমরা গরিব মানুষ। আমার কোন ছেলে নেই। বখাটেদের সঙ্গে পেরে উঠব না। তাই মেয়েদের নিরাপদে রাখতে অন্য জায়গায় আশ্রয় নিতে তিনি বাধ্য হয়েছি। মঙ্গলবার রাতে মেয়েদের মা বাদী হয়ে সীতাকুণ্ড থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।’
বিডি২৪লাইভ