ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ উসমান গনি সম্প্রতি একজন অতিশিপর বৃদ্ধ ভ্যানচালকের ভিডিও চিত্র তার অফিসিয়াল ফেইসবুক এ্যাকাউন্টে পোষ্ট করে তার জীবন যুদ্ধে হার নামার গল্প তুলে ধরেন। উক্ত পোষ্টটি প্রধান মন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর হলে তার তহবিল থেকে দুই লক্ষ টাকা প্রদান করে।
এছাড়া বিভিন্নজন এই পোস্ট দেখে নির্বাহী কর্মকর্তার বিকাশ এ্যাকাউন্টে সর্বমোট পঁচাত্তর হাজার টাকা প্রেরণ করেন। আলাপকালে ইউএনও উসমান গনি এ প্রতিনিধিকে জানান, জেলা শহরে মিটিংয়ে যাবার পথে ঐ বৃদ্ধকে ভ্যানে দুইজন প্যাসেঞ্জার নিয়ে হাইওয়েতে ভ্যান চালিয়ে যেতে দেখেন। এ দৃশ্য দেখে তার খুব কঃষ্ট হয়।
পরের দিন উক্ত ভ্যান চালকের খোজ নিয়ে জানতে পারেন। উপজেলা দুধসর ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামে তার বাড়ি, নাম আদিল উদ্দিন, বৃদ্ধ স্ত্রী, প্রতিবন্ধী এক ছেলে ও বিধবা এক মেয়েকে নিয়ে তার চারজনের সংসার, অপর ছেলে ঢাকায় লেখাপড়া করে। সংসারে একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি তিনি। ভ্যানের চাকা না ঘুরলে সংসারের চাকা ঘোরে না। ফেসবুকে ঐ পোষ্ট দেয়ার পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টিগোচর হলে তিনি প্রধানমন্ত্রীর তহবিল থেকে তাকে দুই লক্ষ টাকা প্রদানের জন্য প্রেরণ করেন।
এছাড়া অনেক ফেসবুক বন্ধু বিকাশের মাধ্যমে সর্বমোট পঁচাত্তর হাজার টাকা অনুদান পাঠান। গাড়াগঞ্জ বাস স্ট্যান্ডে পঁচাত্তর হাজার টাকায় একটি মোবাইল সার্ভিসিংয়ের দোকান করে দেয়া হয়। বৃদ্ধি আদিল উদ্দিনের ছেলে মোবাইল সার্ভিসিংয়ে দক্ষ। বাবার ব্যবসায় সে সহযোগিতা করবে। প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত দুই লক্ষ টাকা তার ব্যাংক একাউন্ডে ফিক্সড ডিপোজিট করা হয়েছে।
প্রতি মাসে এখান থেকে সে কিছু টাকা পাবে। গতকাল স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান সাব্দার হোসেন মোল্লাসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে সাথে নিয়ে তার নামে গড়ে ওঠা ’আদিল উদ্দিন টেলিকম এন্ড মোবাইল সার্ভিসিং সেন্টার’ টি উদ্বোধন করেন ইউএনও মোঃ উসমান গনি।
সূত্র:বিডি২৪লাইভ