অবশেষে ক্যাসিনো সম্রাট ক্যাসিনোকাণ্ডে আজ রোববার ভোর ৫ টায় গ্রেফতার হয়েছেন সঙ্গে তার সহযোগী আরমানকেও গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। আজ রোববার (৬ অক্টোবর) ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয় তাদের। তার গ্রেফতারের পর থেকে একের পর এক বেড়িয়ে আসছে ভয়ঙ্গকর সব তথ্য। এবার তার গ্রেফতারের বিষয় নিয়ে মুখ খুললেন তার দ্বিতীয় স্ত্রী শারমিন চৌধুরী।
সম্রাটকে ক্যাসিনোকান্ডে গ্রেফতার করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী শারমিন চৌধুরী। তিনি বলেন "আমি ব্যক্তিগত ভাবে ধন্যবাদ জানাই প্রধানমন্ত্রীকে"।

রোববার (৬ অক্টোবর) বিকেলে মহাখালীর ডিওএইচএস-এর বাসায় সময় টিভির লাইভে তিনি বলেন, এই অভিযান আরো চালালে ভালো হতো।

রোববার (৬ অক্টোবর) ভোরে সহযোগী আরমানসহ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে সম্রাটকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রথম স্ত্রীর ডিভোর্সের বিষয়ে শারমিন বলেন, ওই আপুটা এ্যাডভোকেট ছিল। সম্রাট যখন অফিস থেকে রাতে বাসায় আসতেন তখন তিনি ঘুম থেকে (আগে ঘুমিয়ে পড়তেন) উঠতেন। এজন্য তাকে ডিভোর্স দিয়ে দেয়।

তিনি বলেন, ও অন্য লাইনে চলে গেছে। তবে ক্যাসিনোর টাকা সে সংসারে খরচ করতো না। অবৈধ টাকা পরিবারের সদস্যদের দিত না। আর দল পালতে কিন্তু টাকা না দিলে ছেলেরা মিছিল-মিটিংয়ে আসতো না। সেজন্য বিশাল অংকের টাকা লাগতো। আমার মনে হয়, সে জন্যই সে ক্যাসিনোতে গেছে।



প্রসঙ্গত, খালেদের পর এবার সেই সম্রাট ও তার অন্যতম সহযোগী আরমান গ্রেফতার হওয়ায় জনমনে ফিরে এসেছে স্বস্তি। সরকারের নেয়া এই অভিযান মানুষ বেশ ইতিবাচক হিসেবে নিয়েছে। এদিকে ঢাকায় ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে অভিযান শুরুর দু-একদিন পরই ঢাকা ছাড়েন ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট। এরপর ছিলেন আত্মগোপনে। নিয়েছিলেন এমন সব পদ্ধতি, যাতে তাকে খুঁজে না পাওয়া যায়। এমনটি জানিয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ।