সারাদেশের সব থেকে আলোচিত সমালোচিত বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারের ঘটনাটি নিয়ে কথা বললেন ছাত্রলীগের নানা কারনে বিতর্কিত ও পদচুত্য সাবেক ছাত্রলীগ সম্পাদক গোলাম রব্বানী। আজ সোমবার (৭অক্টোবর) বিকেল ৪ টার দিকে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে এ বিষয়টি নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন ছাত্রলীগের সাবেক এই সম্পাদক। পোষ্টি শেয়ার হবার পর থেকেই বেশ ভাইরাল হয়েছে ১ ঘন্টার মধ্যেই। তার দেয়া সেই ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো পাঠকদের উদ্দেশ্যে:-
গোলাম রব্বানী তার স্ট্যাটাসে লেখেন:-

দায়টা কোনভাবেই সংগঠনের নয়, সংগঠন তো শিক্ষা-শান্তি-প্রগতির মূলমন্ত্রে উজ্জীবিত হবার দীক্ষা দেয়; সত্য, সুন্দর, ইতিবাচকতা আর মানবিকতার জয়গান গাইতে শেখায়।

দায়টা ব্যক্তি বিশেষের। তবে পরিতাপের বিষয়, এক মন দুধে কয়েক ফোটা গো-মূত্রের ন্যায় গুটিকয়েক বিপথগামী, প্রতিক্রিয়াশীলদের অপকর্মের দায়ভার পুরো সংগঠনের উপরই বর্তায়।

ঘটনা যাই হোক, আইনের ছাত্র হিসেবে এটুকু বুঝি, মার্ডার ক্যান নট বি জাস্টিফাইড বাই এনি মিনস!

অপরাধীর একটাই পরিচয়, সে অপরাধী! সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আবরারের হ*ত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি।

উল্লেখ্য, গত বছরের মে মাসে ছাত্রলীগের মহা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। আর এই এই মহাসম্মেলনের পর ছাত্রলীগের কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি হিসেবে শোভনকে এবং সাধারন সম্পাদক হিসেবে গোলাম রব্বানীকে নিযুক্ত করা হয়। কিন্তু বিভিন্ন বিতর্ক আর নানা ধরনের অভিযোগ আসে তাদের নামে। সম্প্রতি প্রকাশ হয় তাদের সব থেকে বড় ধরনের একটি বিতর্কিত কর্মকান্ডের নাম। শোভন-রব্বানী জাবি উপচার্যের কাছে ১ কোটি টাকারও বেশি চাদাঁ দাবি করে। বিষয়টি গনমাধ্যমে প্রকাশ পেলে তা জানার পর বেশ ক্ষুব্ধ হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যার ফলে কেন্দ্রীয় কমিটির ১ বছর পূর্ন হবার আগেই শোভন-রব্বানীকে এক প্রকার স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়। এবং তাদের জায়গায় নতুন সভাপতি হিসেবে জয়কে এবং সম্পাদক হিসেবে লেখক ভট্টচার্যকে পদে বহাল করা হয়।