বাংলাদেশে এখন করোনা মহামারি চলছে। আর এই মহামারির কারনে এখন সারা দেশে চলছে লকডাউন অবস্থা। যার ফলে দেশের লাখ লাখ খেটে খাওয়া মানুষ আজ হয়ে আছে কর্মহীন। তাদের এখন একমাত্র বেচেঁ থাকার উপায় সরকারের দেয়া সাহায্য সহযোগীতা আর ত্রাণ। কিন্তু বাংলাদেশে সম্প্রতি সময়ে দেখা যাচ্ছে এই সব ত্রাণ এবং সাহায্যের জিনিস গুলো পর্যন্ত মানুষের কাছে আসছে না ঠিক মত। আত্মসৎ করে নিয়ে যাচ্ছে দায়িত্বে থাকা চেয়ারম্যন মেম্বাররা। সম্প্রতি কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের জন্য বরাদ্দ টাকা ও চাল আত্মসাতের ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন।
তিনি বলেছেন, ত্রাণের চালের আমানত দাবি করবেন, আড়াই হাজার টাকার আমানতদারী দাবি করবেন এটা কীভাবে হয়। একই সঙ্গে তো দুইটা দাবি করতে পারেন না। চেয়ারম্যানরা চাল চুরি করে নাকি কিছু কিছু চোরদেরকেই আপনারা চেয়ারম্যান বানিয়েছেন, মেম্বার বানিয়েছেন সেটা ভেবে দেখতে হবে।

এক ফেসবুক লাইভে যোগদান করে তিনি বলেন, মাঠে রাজনীতি করে উঠে আসা নেতার সংখ্যা খুবই কম। মাঠে শ্রম যদি এ দেশে নেতা হওয়া কঠিন। কিন্তু ঘাটে-ঘাটে লবিং করে দ্রুত নেতা বনে যান। তাদের কাছে জনগণের আমানতদারী আশা করা যায় না।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, সংসদে ৮০ শতাংশ এমপি বানাইছেন ব্যবসায়ীদের। ব্যবসায়ীদের মধ্যে অনেক ভালো নেতা আছে। কিন্তু বেশিরভাব ব্যবসায়ী যারা নেতা হয়েছেন তারা স্বার্থের বাইরে যাবে না এটাই স্বাভাবিক। যারা মাঠে রাজনীতি করেছে তাদের জন্য সংসদে যাওয়াটাই কঠিন। সাধারণ মানুষের জন্য ঝাঁপিয়ে পড়েছে এরকম নেতা আমাদের দেশে করোনার আগেও কম ছিল। আমাদের তো অধিকাংশ নেতা ছিল ঘাটের নেতা। মাঠের নেতার সংখ্যা খুবই কম।

তিনি আরও বলেন, ঘাটে-ঘাটে দৌড়াদৌড়ি করে অধিকাংশ নেতা হয়েছেন। মাঠে রাজনীতি করে উঠে আসা নেতার সংখ্যা খুবই কম। মাঠে শ্রম করে এ দেশে নেতা হওয়া কঠিন। কিন্তু ঘাটে-ঘাটে লবিং করে দ্রুত নেতা বনে যান। করোনাভাইরাসের কারণে সবার চরিত্র মানুষের কাছে ফুটে উঠেছে। ডাক্তারদের ভূমিকা মানুষ দেখছে, রাজনীতিবিদদের ভূমিকা মানুষ লক্ষ্য করছে। যারা নির্বাচনের মাধ্যমে বিভিন্ন কারচুপি করে নেতা হয়েছেন তাদের কর্মকাণ্ডও মানুষ দেখছে।

এ দিকে শুধু ত্রাণের খাদ্য সামগ্রী নয় আত্মসাৎ হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঈদ উপহারের টাকাও। গত কয়েকদিনে দেখা গেছে জনগনের মোবাইলে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর টাকাও আত্মসাৎ করে নিচ্ছে নিজ নিজ এলাকায় দায়িত্বে থাকা চেয়ারমেন মেম্বাররা। দেশে এমন সংকটপূর্ন সময়েও ক্ষমতার অপব্যবহার করা এ সব মানুষেরা। যা বাংলাদেশের জন্য সত্যিই একটি বড় লজ্জাস্কর বিষয়।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display