একটা সময়ে সমাজের সব থেকে উচ্চস্তরে ছিল শিক্ষকদের অবস্থান। শিক্ষকরাই ছিল সমাজের দর্পন। সমাজ তৈরীর কারিগর। অথচ কালের বিবর্তনে সময়ের সাথে সাথে সেই শিক্ষকদেরই এখন আর কোন কদর নেই। শিক্ষকরাই এখন সব থেকে বেশি লাঞ্চিত পুরো সমাজে। যার আরেকটি প্রমান পাওয়া গেল বরিশালের একটি ঘটনায়।বরিশাল নগরীর একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাবেক এক শিক্ষককে কান ধরে ওঠ-বস করানোর ঘটনা ঘটেছে। এরই মধ্যে কান ধরে ওঠ-বস করানোর ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। তবে সন্মানহানি হলেও অর্থের অভাব আর নিরপত্তাহীনতায় আইনগত ব্যবস্থা নিচ্ছেন না ভুক্তভোগী শিক্ষক।
সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কনকদিয়া ইউনিয়নের আয়লা গ্রামের এই বাসিন্দা বলেন, আজ দুপুরে বরিশাল কোতোয়ালি থানার ওসি সাহেব আমাকে ফোন দিয়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ ও এ বিষয়ে একটি অভিযোগ দাখিলের জন্য বলেছেন। কিন্তু অভিযোগ দাখিল কিংবা মামলা করতে আমি ভয় পাচ্ছি। পাশাপাশি ওসব পরিচালনা করার জন্য আর্থিকভাবে আমি প্রস্তুত নই।

ভুক্তভোগী শিক্ষক বলেন, ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত জমজম ইনস্টিটিউটের নগরীর রূপাতলী শাখায় শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলাম। মেডিকেল টেকনোলজি কোর্সসহ স্বাস্থ্যসেবার সঙ্গে সম্পর্কিত নানা কোর্স ইনস্টিটিউটে পড়ানো হয়। আমি ম্যাটস বিভাগের শিক্ষক ছিলাম। ২০১৮ সালে ওই প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরি ছেড়ে দেই। তবে করোনাকালে মার্চ মাসে খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে অনলাইনে ৮-১০টি ক্লাস করি।

তিনি বলেন, ওই প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করার সময় কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে বিরোধ দেখা দেয়। এর মধ্যে মো. ইমন ও তার স্ত্রী মনিরা ছিল। তারা ক্লাস ফাঁকি ও লেখাপড়ায় অমনোযোগী ছিল। তাদের লেখাপড়ায় মনোযোগ দিতে বলা হয়। কিন্তু তারা কর্ণপাত না করে উল্টো পরীক্ষায় ভালো নম্বর পাইয়ে দিতে নানা সময় তাদের বহিরাগত বন্ধুদের দিয়ে চাপ দিয়ে আসছিল। পাশাপাশি ইমন আমাকে কখনও সালাম দিতো না। এ নিয়ে ইনস্টিটিউটের কয়েকজন ছাত্র ইমনকে ভর্ৎসনা করেছিল। তবে সালাম না দেয়া নিয়ে আমার মাথাব্যথা ছিল না। তারপরও ইমন আমার ওপর ক্ষিপ্ত ছিল। এসব কারণে ২৬ আগস্ট হাতেম আলী কলেজ সংলগ্ন এলাকায় ইমন ও তার ৬-৭ জন বন্ধু আমার পথরোধ করে। এরপর তারা আমার মুঠোফোন ও মোটরসাকেলের চাবি নিয়ে যায়। সেখান থেকে আমাকে তারা জোর করে অক্সফোর্ড মিশন রোড এলাকায় নিয়ে যায়। এরপর আমাকে সেখান থেকে গোরস্থান রোডে নিয়ে মারধর করে তারা। এ সময় ইমনের সঙ্গে ৬-৭ জন যুবক ছিল। একজনের হাতে লাঠি ছিল। তাদের কিল-ঘুষিতে আমার নাক ফেটে যায়। তাদের ভয়ে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলাম। কি করব বা তাদের হাত থেকে কীভাবে রক্ষা পাব কিছুই মাথায় আসছিল না তখন।

তিনি বলেন, মারধরের একপর্যায়ে ইমন আমাকে কান ধরে ওঠ-বস করায়। এরপর ইমন আমাকে কিছু কথা বলতে বাধ্য করে। সেগুলো একজন মুঠোফোনে ধারণ করে। তারা যেভাবে যা বলতে বলেছে, আমিও তাদের হাত থেকে বাঁচতে তাই বলেছি। বিষয়টি অনেক কষ্টদায়ক ছিল। ছাত্রের হাতে এভাবে মারধরের শিকার হতে হবে তা কল্পনাও করতে পারিনি। আমার দুর্ভাগ্য। যে অবস্থার মধ্য থেকে আমাকে যেতে হয়েছে তা বলে বোঝানো সম্ভব নয়।

তিনি জানান, গ্রামের বাড়িতে প্রতিবেশীরা তাকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করছেন। এমনকি সহপাঠী ও বন্ধুরা তাকে এড়িয়ে চলছেন। এ অবস্থায় তিনি খুবই মানসিক ভারসাম্যহীনতায় ভুগছেন।

এ বিষয়ে জানতে শিক্ষার্থী মো. ইমনের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। তবে ইমনের ঠিকানা ও মুঠোফোন নম্বর না পাওয়ায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

ইমনের এক সহপাঠী বলেন, ইমন আমাকে বলেছে তার স্ত্রী মনিরাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়েছিলেন ওই স্যার। কুয়াকাটায় রাত কাটালে নাকি ভালো নম্বর দেবেন বলেছেন। তবে বিষয়টি সত্য না মিথ্যা তা বলতে পারব না। ইমন এবং তার স্ত্রী ভালো জানেন। পরে শুনেছি স্যারকে কান ধরে ওঠ-বস করিয়েছে ইমন।

এ ব্যাপারে তার সঙ্গে জমজম ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদুল হক যোগযোগ করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু মামলা পরিচালনা করার জন্য তাদের পক্ষ থেকে কোন সহযোগিতা করা হবে না বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী শিক্ষক।

জমজম ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক সাজ্জাদুল হক বলেন, ওই শিক্ষক আমাদের এখানে খণ্ডকালিন হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ভিডিওটি আমারা দেখেছি। কিন্তু সেটা ক্যম্পাসের বাহিরে। এছাড়া ওই শিক্ষক আমাদের এখান থেকে অনেক আগেই চাকরি ছেড়ে চলে গেছেন। তাই আমাদের এ বিষয়ে তাকে পরামর্শ দেয়া ছাড়া কিছুই করার নেই।



এ দিকে এই ঘটনা জানাজানি পর থেকেই সারা দেশে এ নিয়ে শুরু হয় বেশ তোলপাড়। বিশেষ করে সেই ভিডিও ভাইরাল হয়ে যাওয়ার পর থেকেই শুরু হয় নানা ধরনের মন্তব্য। সকলেই এমন একটি ঘটনাকে নিন্দা জানিয়েছে। সবাই ভুক্তভুগী ঐ শিক্ষকের জন্য সমবেদনা জানিয়েছে। আর সেই সাথে ঐ ছাত্রের বিচার দাবি করেছেন অনেকেই। এ নিয়ে বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. নূরুল ইসলাম বলেন, ভিডিওটি হাতে পেয়ে ভুক্তভোগী শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তাকে এ বিষেয়ে একটি অভিযোগ দাখিলের জন্য বলা হয়েছে। তিনি অভিযোগ দাখিল করলে বিষয়টি যথাযর্থ আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আরো পড়ুন

প্রয়াণের আগে নেতৃত্ব ঠিক করে গেছেন আল্লামা শফী,মানছেন না বাবুনগরী

24 September, 2020 | Hits:978

আল্লামা আহমদ শফী, বাংলাদেশের আলেম জগতের সব থেকে বড় একটি নাম। দেশের কওমী মাদ্রাসার মাথার তাজ ছিলেন তিনি। তার হাত ধরেই দেশ...

নিজেরাই নিজেদের শাস্তি চাইলেন এমসি কলেজের সেই ঘটনার মামলার দুই আসামি

26 September, 2020 | Hits:926

দেশে আবারো গুরুতর অভিযোগের জন্ম দিল ছাত্রলীগ। বেশ কিছুদিন ধরেই এই দলটির নামে তেমন কোন সমালোচনামুলক কথা শোনা না গেলেও হঠা...

অবশেষে তাহলে সিইসি কবুল করলেনই : রুমিন ফারহানা

26 September, 2020 | Hits:769

বাংলাদেশে জন্মলগ্ন থেকেই একটি বিষয় নিয়ে বেশ আলোচনা সমালোচনা হয়েছে। আর তা হলো এ দেশে দুর্নিতী আর চুরির বিষয়। বিশেষ করে স্...

পুলিশ কর্মকর্তার ভিডিও সাড়া ফেললো অনলাইনে,'আমি নিক্সন চৌধুরীর লোক' (ভিডিওসহ)

24 September, 2020 | Hits:566

সম্প্রতি দেশের স্যোশাল মিডিয়া এবং ইউটিউবে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে বেশ। যে ভিডিওতে দেখা যায় পুলিশের এক কর্মকর্তার ট’/র্চা...

এমসি কলজের ঘটনায় জড়িত দলিয় সংগঠনের নেতারা, এবার মুখ খুললেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

26 September, 2020 | Hits:471

আবারো দেশ উত্তাল ছাত্রলীগের কর্মকান্ডে। ছাত্রলীগের কিছু বিপথগামী নেতাদের ঘটানো একটি জঘন্য ঘটনা নিয়ে এখন দেশরে সর্বত্র চল...

অবশেষে ভিপি নুর নিজেই জানালেন,কেন সরকার পতনের আন্দোলন করবেন না তিনি

26 September, 2020 | Hits:323

ভিপি নুর, বাংলাদেশের বর্তমান সময়ের সব থেকে আলোচিত একটি বড় নাম। বিশেষ করে বর্তমান ছাত্র রাজনিতীতে তার প্রভাবও বেশ বড় রকমে...