রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় দুই স্কুল শিক্ষার্থী দিয়া ও আবদুল করিম নিহত হওয়ার ঘটনায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন করছে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।
এদিকে, বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের বিচার চেয়ে ৯ দফা দাবিতে দেশের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের টানা আন্দোলন দেখে গর্ববোধ করছেন বলে জানিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে করেন সাকিব। সঙ্গে প্রতিশ্রুতি দেন, দাবি পূরণ করা না হলে তিনিও রাস্তায় নামবেন।
এর পাশাপাশি নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদেরকে ক্লাসে ফিরে যেতেও অনুরোধ জানিয়ে শুক্রবার (৩ আগস্ট) রাতে নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট দিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। তবে তা ঘণ্টা দুয়েক পরে বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১০টার দিকে পোস্টটি ডিলিট করে দেন সাকিব।
নতুন করে একটি পোস্টে ভক্তদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি লিখেন, আগের পোস্টের জন্য তাকে যেন কেউ ভুল না বুঝেন। এর সঙ্গে লাইভে এসেও আগের স্ট্যাটাসের ব্যাখ্যা দেন তিনি।
পরের পোস্টটিতে সাকিব আল হাসান লিখেছেন, \’আমার সকল ভক্তদের জানাচ্ছি যে আপনারা হয়তো আমার ব্যাক্ত করা কথায় আমাকে ভুল বুঝছেন। দয়া করে আমাকে ভুল বুঝবেন না, আমারও আপনাদের সবার মতো পরিবার আছে, যাদের নিরাপত্তা আমার কাছেও অনেক বেশি মূল্যবান। আমি আপনাদেরই একজন, আমি সব সময় আপনাদের সাথে ছিলাম, আছি এবং কথা দিচ্ছি ভবিষ্যতেও থাকব। আমি শুধু বলতে চাই যে আপনাদের আন্দোলনকে একটি সঠিক ফলাফলে পৌঁছে দেয়ার জন্যে আমাদের সরকার কে সুযোগ দেয়া উচিত যেন সরকার খুব দ্রুত আপনাদের দাবি বাস্তবায়ন করতে পারে।\’
আগের পোস্টে অবশ্য সাকিব আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদেরকে রাস্তা ছেড়ে ঘরে ফেরার আহ্বান জানিয়েছিলেন। এতে কমেন্ট সেকশনে ভক্তরা সমালোচনায় সরব হন। এর প্রেক্ষিতে সেটি ডিলিট করেন এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।
সাকিবের দেয়া আগের ফেসবুক পোস্টটি হুবহু তুলে ধরা হল-\’আমি এখন ফ্লোরিডায় আছি। আজ এক গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে আমার তরুণ ফ্যানদের উদ্দেশ্যে কিছু বলতে চাই।
গত ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাস চাপায় দুই স্কুল শিক্ষার্থী দিয়া ও আবদুল করিম নিহত হওয়ার ঘটনায় আমি প্রচ- মর্মাহত ছিলাম। কিন্তু যখন দেখলাম তার সহপাঠী থেকে শুরু করে সারাদেশের ছাত্রছাত্রীরা দোষীদের শাস্তি দাবি ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছে, তখন গর্ববোধ করেছি বাংলাদেশের একজন নাগরিক হিসেবে। দেশে থাকলে আমিই তোমাদের অটোগ্রাফ নেয়ার জন্য চলে আসতাম।
তোমাদের সাধুবাদ জানিয়ে বলতে চাই, তোমাদের দাবি কার্যকর হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিহত পরিবারকে আর্থিক সহায়তা ছাড়াও নিরাপদ সড়ক আইন করতে আন্তরিকভাবে কাজ করছেন। ইতোমধ্যে অভিযুক্ত পরিবহনের রুট পারমিট বাতিল সহ পাঁচ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ অবস্থায় তোমাদের কাছে বিনীত অনুরোধ করবো, ক্লাসে ফিরে পড়াশোনায় মনোনিবেশ করতে। তোমরা যা করেছ তা এদেশে ইতিহাস হয়ে থাকবে। এ অর্জন সফল হবে তোমাদের পড়ার টেবিলে ফিরে যাওয়ার মাধ্যমে।
তোমাদের দাবি পূরণ হয়েছে এবং হচ্ছে। ব‍্যত‍্যয় ঘটলে আমাকে পাবে তোমাদের সাথে।\’
প্রসঙ্গত, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ দুই ম্যাচ খেলতে এখন বাংলাদেশ দল যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায়। সেখান থেকেই আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম \’ফেসবুক\’-এ স্ট্যাটাস দেন সাকিব।

বিডি২৪লাইভ