বিজিবির সন্তানরা উচ্চ শিক্ষা পাবে ভারতে, স্ত্রীদের দিল্লি সফর সোমবার থেকে শুরু হয়েছে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনী তথা বিএসএফ-বিজিবি শীর্ষ পর্যায়ের সম্মেলন।
বিবিসি জানাচ্ছে, এই সম্মেলন থেকে উভয়পক্ষের মধ্যে বোঝাপড়া ও সহযোগিতা বাড়ানোর উপর জোর দেওয়া হয়েছে। পাঁচদিনের এই বৈঠকের আলোচ্য সূচিতে যেসব বিষয়ের কথা উল্লেখ করা হয়েছে তার মধ্যে সীমান্ত এলাকায় অপরাধ দমনের জন্যে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বৈঠক চলবে আগামী ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।
জানা গিয়েছে, বছরে দুবার বিএসএফ ও বিজিবি মহাসচিব পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এবার হচ্ছে দিল্লিতে। শেষ বৈঠকটি হয়েছিল ঢাকায় গত এপ্রিল মাসে। এবারের এই ৪৭তম বৈঠকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিএসএফের প্রধান কে কে শর্মা এবং বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মহম্মদ সাফিনুল ইসলাম।
ভারতের পক্ষ থেকে তুলে ধরা হয়েছে- বিএসফের সদস্যদের উপর বাংলাদেশী দুষ্কৃতিদের হামলা ঠেকানো, সীমান্ত এলাকায় অপরাধ বন্ধে যৌথ উদ্যোগ, ভারতীয় বিদ্রোহী গ্রুপগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া, সীমান্ত অবকাঠামো, যৌথ টহলের মতো বিষয়।
আর বাংলাদেশের প্রস্তাবিত বিষয়গুলোর মধ্যে আরও রয়েছে সীমান্ত এলাকায় অপরাধ দমন, ভারত থেকে বাংলাদেশে মাদক পাচার, বিএসফের হাতে বাংলাদেশী নাগরিকদের গ্রেফতার বা আটক হওয়া ইত্যাদি।
আলোচনার জন্যে বিজিবির পক্ষ থেকে তাদের পরিবার পরিজনদের জন্যেও কিছু কর্মসূচির বিষয়ে বৈঠকে আলোচনার প্রস্তাব করা হয়েছে।
যেমন বিজিবি ও বিএসফ এই দুই বাহিনীর কর্মকর্তাদের স্ত্রীদের ভারত ও বাংলাদেশ সফর। এবং ভারতে বিজিবির কর্মকর্তাদের সন্তানদের উচ্চ শিক্ষা। বাংলাদেশের সীমান্ত বাহিনী বিজিবির পক্ষ থেকে ভারতে বাংলাদেশী স্কুল-শিশু, ডাক্তার ও সাংবাদিকদের ভারত সফরেরও প্রস্তাব করা হয়েছে।
বিএসএফ ও বিজিবি-র সদস্যদের মধ্যে গত কয়েক বছর ধরে ভলিবল, বাস্কেটবল, ব্যাডমিন্টন বা হকি-র প্রীতি ম্যাচের আয়োজন করা হচ্ছে – বিজিবির এজেন্ডাতেও এই সব ’বন্ধুত্বপূর্ণ খেলাধুলো’র কথা উল্লেখ করা হয়েছে।somoyerkonthosor