চট্টগ্রামে দুই শিশুর অভিভাবকত্ব মায়ের কাছে না-কি বাবার কাছে থাকবে দ্বন্দ্বে শেষমেশ বাবারই জয় হলো। পিতা মঈনুল ইসলাম চৌধুরীর কাছেই দুই সন্তানকে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।
সোমবার সকালে দুই শিশুর অভিভাবকত্ব নিয়ে কনটেম্পট পিটিশন খারিজ করে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বিভাগের বেঞ্চ এই আদেশ দেন।
আদেশে বলা হয়, চট্টগ্রামের ওই দম্পতির দুই সন্তান রিয়ানা ও রোহান আপাতত বাবা মঈনুল হোসেন চৌধুরীর কাছেই থাকবেন।
তবে দুই সন্তানকে নিয়মিত দেখতে যেতে পারবেন তাদের মা রোমানা ফয়েজ। সেই সঙ্গে রিয়ানা ও রোহানকে নিয়মিত মনোচিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রাখতেও বলেছেন আদালত।
এর আগে গত ২ জুন বিয়ে বিচ্ছেদের পর দুই সন্তানের অভিভাবকত্ব চেয়ে মায়ের করা এক রিটের প্রেক্ষিতে বাবার কাছে ৫ দিন ও মায়ের কাছে ২ দিন থাকতে দুই শিশুকে আদেশ দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ। কিন্তু সেসময় শিশু দুটি আদালতে বলেন, তারা শুধু বাবার কাছেই থাকতে চান। এ ঘটনায় সেসময় বিস্ময় প্রকাশ করে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।
পরে দুই শিশুকে বাবা-মার কাছে সমানভাবে রাখার জন্য সমাজ সেবা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা নিয়োগ দেন আপিল বিভাগ। যদিও সংস্থাটি আপিল বিভাগে রিপোর্ট দাখিল করে বলেছে, দুই শিশু কোনো ভাবেই মায়ের কাছে যেতে চায় না। উচ্চ আদালত যা শুনে হতবাক।
সেসময় আদালত এও বলে, সন্তানের প্রতি বাবার যেমন অধিকার আছে মায়ের ঠিক তেমনি অধিকার। ভালবাসাও ঠিক একই রকম।
তবে আপিল বিভাগ বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, সন্তান তার মায়ের কাছে যেতে চায় না এঘটনা তারা আগে শোনেননি।
এ নিয়ে বাবার যুক্তি সন্তানরা যেতে না চাইলেও তিনি চেষ্টা করেছেন সন্তানদের তার মায়ের কাছে পাঠাতে।
অন্যদিকে এ নিয়ে কোনও কথা বলতে রাজি হননি দুই শিশুর মা রোমানা ফয়েজ। অবশেষে এই মামলায় চূড়ান্ত রায়ে বাবা মঈনুলেরই জয় হলো।dhakatimes24