করোনা ভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে যাওয়ার পরও এই রোগের এখন পর্যন্ত কোন রকম প্রতিষেধক আবিষ্কার করা যায়নি। এ কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রতিদিন করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। একই সাথে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রাণনাশের সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কার করা না গেলেও এই ভাইরাস অনেকটা নিয়ন্ত্রণ করেছে বিশ্বে চারটি দেশ। এই চারটি দেশ হল চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুর ও তাইওয়ান। এই চারটি দেশে এরই মধ্যে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে সফল হয়েছে। এই দেশ গুলো কঠোর পদক্ষেপের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করেছে।


চীন সরকার একে ’গণযুদ্ধ’ হিসেবে ঘোষণা দেয় এবং ’ফাইট অন উহান, ফাইট অন চায়না’ কর্মসূচি চালু করে। এ ছাড়া প্রেরণামূলক ছবি, বিজ্ঞাপন তৈরি করে যুদ্ধকালীন প্রচারের মতো প্রচার চালাতে শুরু করে। অন্য দেশগুলোও চীনের নীতি অনুসরণ করে সফল হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, নাগরিকদের সচেতনতা ও বিশ্বজুড়ে পরস্পরের সহযোগিতার মাধ্যমে আক্রান্ত দেশগুলো ভাইরাসটির মোকাবিলা করতে পারে।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোকাবিলায় দেশগুলো অতীত থেকে শিক্ষা নিয়েছে। ২০০৩ সালের সার্স ভাইরাস আক্রমণের পর মহামারিতে জ্বর মাপা তারা নিয়মে পরিণত করেছিল। চীনের উহানের বিভিন্ন স্থানে নানা পন্থা নেওয়া হয়েছিল। জ্বর হলে তাপমাত্রা মাপা বাধ্যতামূলক ছিল। তাপমাত্রা মাপার জন্য পুলিশ কর্মকর্তারা অনেক জায়গায় বাড়ি বাড়ি গিয়েছিল। অনেক সময় বলপ্রয়োগের ঘটনাও ঘটেছে। কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে চীন করোনা সংক্রমণ দমিয়েছে। আক্ষরিক অর্থেই কেউ ঘর থেকে বের হতে পারেনি।

কিছু বিল্ডিং পুরো লকডাউন ছিল। কিছু কমিউনিটি লকডাউন ছিল। কেউ অসুস্থ হলে অ্যাম্বুলেন্স এসে নিয়ে যেত। খাদ্য থেকে শুরু করে ওষুধ, সব দুয়ারে দুয়ারে পাঠানো হয়েছে। চীন সরকার শুরুতে একটু দেরি করলেও পরে সর্বাত্মক যুদ্ধ ঘোষণা করে করোনাকে প্রায় হারিয়ে দিয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে সব সংক্রমিত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা প্রত্যেক ব্যক্তিকে খুঁজে বের করা জরুরি। মহামারির সময় উহানে ১৮ হাজার ব্যক্তিকে খুঁজে বের করা হয়েছিল। সংক্রমিত ব্যক্তিদের ঘরে বসে পৃথককরণের বিকল্প অবশ্যই খুঁজতে হবে। কারণ, এটি পরিবারকে বিপন্ন করে তোলে। চীনে ৭৫-৮০ ভাগ সংক্রমণের ঘটনা পরিবারের মধ্য থেকে ঘটেছে। অনেক সময় সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের খোঁজার জন্য কর্মীর ঘাটতি থাকে। এ ক্ষেত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাহায্য নেওয়া যায়। যারা সংক্রমিত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসবেন, তাদের ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে এবং দিনে দু’বার তাপমাত্রা মাপতে হবে। সংক্রমিত ব্যক্তিদের ঘরে থাকার নিয়মের বদলে শহরগুলোয় এমন সুবিধা সৃষ্টি করতে হবে, যাতে মৃদু ও হালকা অসুস্থ ব্যক্তিরা নার্স ও চিকিৎসকদের সাহায্যে দ্রুত সেরে উঠতে পারে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, চীনের প্রচেষ্টা সফল হয়েছে। কারণ, তাদের হাজার হাজার স্বেচ্ছাসেবক ছিল। সরকার একে ’গণযুদ্ধ’ হিসেবে ঘোষণা দেয় এবং ’ফাইট অন উহান, ফাইট অন চায়না’ কর্মসূচি চালু করে।

এ ছাড়া প্রেরণামূলক ছবি, বিজ্ঞাপন তৈরি করে যুদ্ধকালীন প্রচারের মতো প্রচার চালাতে শুরু করে। অনেক মানুষ জ্বর মাপা, সংক্রমিত ব্যক্তির খোঁজ করা, হাসপাতালের নির্মাণকাজ, খাবার সরবরাহের মতো নানা কাজে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। প্রশিক্ষণ নিয়ে অনেকেই সাধারণ সেবার মতো কাজগুলো চালাতে পারেন। বিশেষজ্ঞ জিমের বলেন, আমার অভিজ্ঞতায়, জনসাধারণকে কতটা অবহিত করা হয়েছে এবং তাদের অংশগ্রহণের ওপর সাফল্য নির্ভরশীল।

মাস্কের ব্যবহার নিয়ে মার্কিন বিশেষজ্ঞদের মধ্যেও বিভক্ত মতামত পাওয়া যায়। তবে এশিয়া অঞ্চলে বসবাসকারী ব্যক্তিরা মাস্ক ব্যবহারের মূল্য বোঝেন। সার্জিক্যাল মাস্কে করোনাভাইরাসে প্রতিরোধ নিয়ে খুব কম তথ্য পাওয়া যায়। তবে এশিয়ার দেশগুলোয় মানুষকে মাস্ক পরতে বলা হয়। চীনের কয়েকটি শহরে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়। এমনকি মাস্ক ব্যবহার করার জন্য পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হয়। বিশেষজ্ঞদের মত হচ্ছে, অসুস্থদের অবশ্যই রোগ ছড়ানো ঠেকাতে মাস্ক পরতে হবে।

জরুরি পরিস্থিতিতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে পরামর্শ দেওয়ার জন্য গঠিত বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সভাপতি ড. ডেভিড এল হিম্যান বলেন, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই পরিবারের সদস্য, বন্ধু ও সহকর্মীদের মাধ্যমে গুচ্ছাকারে ভাইরাসটি সংক্রমিত হয়।

ভাইরাসটি এভাবে কেন ঘুরে বেড়ায়, তা কেউ নিশ্চিত নন। তবে বিশেষজ্ঞরা হাল ছেড়ে দিচ্ছেন না। ড. হিম্যান বলেন, আপনাকে পৃথক প্রাদুর্ভাবগুলো শনাক্ত করতে এবং থামাতে হবে। এরপর কঠোরভাবে কে কার সংস্পর্শে এসেছে, সেগুলোকে চিহ্নিত করতে হবে। তবে এগুলো করতে গেলে স্বাস্থ্য খাতের কর্মকর্তাদের বুদ্ধিমান, দ্রুত প্রয়োজনীয় কাজ সম্পন্ন করতে হবে এবং জনগণের কাছ থেকে পূর্ণ সহযোগিতা লাগবে।

করোনা মোকাবেলায় করণীয় নিয়ে একাধিক মার্কিন বিশেষজ্ঞ তাদের মতামত দিয়েছেন। তারা বলেছেন, জনগণকে অবশ্যই বাড়িতে থাকতে হবে। এর পাশাপাশি এমন সিস্টেম দাঁড় করাতে হবে, যাতে সংক্রমণের শিকার হওয়া ব্যক্তিকে আলাদা রাখা যায় এবং বাড়ির বাইরে থেকে যত্ন নেওয়া যায়। ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরও বাড়াতে হবে। মাস্ক ও ভেন্টিলেটর উৎপাদন আরও বাড়াতে হবে।

চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুর ও তাইওয়ানের চিকিৎসকরা হাসপাতালের ফার্মেসিতে যা কিছু ছিল তা নিয়েই লড়াইয়ে নেমেছেন। তারা অ্যান্টি-ম্যালেরিয়া ড্রাগ ক্লোরোকুইন এবং হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন এবং অ্যান্টি-ভাইরাল রেমডিসিভার ব্যবহার করেছিল। তবে এগুলো ব্যবহারের কোনো অনুমতি নেই। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে এগুলো কার্যকর কি না, এর কোনো প্রমাণও নেই। এগুলোর জন্য চীনে ২০০ ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা হয়েছে।

উল্লেখ্য, চীনে গত বছরের শেষের দিকে প্রথম করোনা ভাইরাস দেখা দেয়। এরপর এই করোনা ভাইরাস বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়াতে থাকে। বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ১৯৭ টি দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। তবে এই ভাইরাসের এখন পর্যন্ত কোন রকম প্রতিষেধক আবিষ্কার করা যায়নি। কিন্তু এরপরও চীনসহ চারটি দেশ কঠোর পদক্ষেপের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করেছে। এই চার দেশ থেকে শিক্ষা নিয়ে বিশ্বের বাকি দেশ গুলো করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করতে পারে বলে মনে করেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিশেষজ্ঞরা।

আরো পড়ুন

মেয়ের গোপন ভিডিও রেকর্ড করতেন মা, ভিডিও প্রতি টাকা দিতেন জামাই

23 November, 2020 | Hits:2325

প্রতিটি মানুষের জীবনে এমন এমন কিছু ঘটনা ঘটে থাকে যা মানুষকে করে তোলে অবাক। বর্তমান পৃথিবীতে সম্পর্কগুলোও কেমন যেন হয়ে যা...

অবশেষে জানা গেল কেন মৃত তরুণীদের ভোগের বস্তু বানাতেন সেই মুন্না

23 November, 2020 | Hits:1236

সারা দেশে একটি ঘটনা বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। আর এই ঘটনাটি প্রকাশ হবার পর থেকেই মানুষে মধ্য সৃষ্টি হয়েছে একটি আতঙ্ক। না...

যেদিন শুনলাম সাকিব পূজা উদ্বোধন করতে যাবে, আনন্দে বুকটা ভরে উঠেছিল:বিচারপতি মানিক

23 November, 2020 | Hits:972

সাকিব আল হাসান, বাংলাদেশের সব থেকে জনপ্রিয় একটি নাম। দেশের সব থেকে বড় ক্রিকেটার তিনি। সব সময়ই থাকেন দেশের আলোচনায়। তবে স...

সেদিন বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে করা সেই প্রশ্নের জবাব দেননি জিয়া,অস্থিরভাবে হাতঘড়ির দিকে তাকাচ্ছিলেন:খুশবন্ত

22 November, 2020 | Hits:503

বাংলাদেশের ইতিহাসে দুটি নাম সব থেকে বেশি জনপ্রিয়। একটি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এবং অপরজন মেজর জিয়া বা জিয়াউর রহমান। দ...

অবশেষে গোল্ডেন মনিরের সঙ্গে প্রতিমন্ত্রীর সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন ওবায়দুল কাদের

24 November, 2020 | Hits:298

সম্প্রতি বাংলাদেশের টক অব দ্য টাউনে পরিনীত হয়েছে একটি নাম। আর তা হলো গোল্ডেন মনির। এই নামটি এখন সারা দেশে উচ্চারিত একটি ...

নারী কাউন্সিলর এক চামেলীর দাপটেই অসহায় পুরো রেল কর্তৃপক্ষ

22 November, 2020 | Hits:245

বাংলাদেশ রেলওয়ে, বাংলাদেশের সরকারি খাতের সব থেকে অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। প্রতিবছরই এই রেলখাতে ঘাটতি থাকে ব্যাপক পরিমানে। এ দ...