চারদিন ধরে থাইল্যান্ডের একটি গুহার ভিতর আটকা পড়ে আছেন থাইল্যান্ডে ১২ টিনেজ ফুটবলার ও তাদের কোচ। সেখানে বন্যার পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে উদ্ধার অভিযান ব্যাহত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে তাদের প্রাণহানির আশঙ্কা দেখা দিতে পারে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। এতে বলা হয়েছে, ভারি বর্ষণের কারণে ওই এলাকায় দ্রুত পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছিল।
পাম্প ব্যবহার করে যে হারে ওই গুহা থেকে পানি সরানো হচ্ছিল তার চেয়ে অনেক দ্রুত গতিতে সেখানে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছিল। উদ্ধার কাজে নামানো হয়েছে কয়েক শত উদ্ধারকর্মীকে। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তারা হতাশ হয়ে পড়েছেন। ওই গুহার প্রধান প্রবেশ পথ দিয়ে এখন ভিতরে প্রবেশ করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। ফলে আটকে পড়া ব্যক্তিদের উদ্ধারের জন্য অন্য কোনো পথ খোঁজার চেষ্টা হচ্ছিল। উল্লেখ্য, ওই গুহার ভিতর আটকে পরার পর শনিবার থেকে দলটির সঙ্গে কোন যোগাযোগ নেই। তারা কোনো সাড়া দিচ্ছে না। মঙ্গলবার নৌবাহিনীর ডুবুরিরা বলেছেন, তারা গুহার ভিতরে পায়ের ছাপ দেখতে পেয়েছেন। এতে ওই ফুটবল টিমটির সদস্যদের উদ্ধারের আশা জেগে উঠেছে। তারা আশা করছেন দলের সদস্যরা নিরাপদে আছেন। গুহা থেকে পানি নিষ্কাশনের জন্য শিল্প কারখানায় ব্যবহৃত পাম্প ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু তাতেও কোনো কুলকিনারা হচ্ছে না। পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তা গুহার আরো একটি চেম্বারকে প্লাবিত করেছে। উদ্ধারকারীরা এখন মনে করছেন নিখোঁজ বালকদের দলটি ও তাদের কোচ হয়তো এখন পাহাড়ের উঁচু কোনো চূড়া দিয়ে বিকল্প পথ খোঁজার চেষ্টা করছে। এক্ষেত্রে তাদের সম্ভাব্য অবস্থান জানতে উদ্ধারকারীরা ব্যবহার করছে ড্রোন।
যদিও ওই পাহাড়ি এলাকায় মেঘের কারণে ড্রোনগুলো উড়তে বিঘœ ঘটছে। এসব তথ্য ঘটনাস্থল থেকে জানিয়েছেন বিবিসির সাংবাদিক জোনাথন হেড। থাইল্যান্ডের চিয়াং রাইয়ের কাছে অবস্থিত থাম লুয়াং নাং নোন গুহা। এটি থাইল্যান্ডের চতুর্থ সর্ববৃহৎ গুহা। কিন্তু তার ভিতর কেন ওই টিনেজ খেলোয়াররা ও তাদের কোচ গিয়েছেন তা জানা যায় নি।