কথায় আছে ভাগ্য খুলতে সময় লাগে না। এই প্রবাদটিই যেন সত্যি হলো কৃষক বিলাস রিক্কালা জন্য। দিন আনা দিন খাওয়া সংসারে তিনি যখন টানা পোড়নের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিলেন ঠিক তখনই যেন ভাগ্য বিধাতা তার দিকে মুখ তুলে তাকিয়েছেন। লাটরিতে পেয়ে গেলেন ২৮ কোটি টাকা। কাজের খোঁজে দুবাই গিয়েছিলেন হায়দ্রাবাদের এই কৃষক বিলাস রিক্কালা। কিছুদিন সেখানে গাড়ি চালিয়ে উপার্জনের চেষ্টা করলেও তেমন কিছু না করতে পেরে শেষমেশ দেশে ফিরে আসেন তিনি।
দেশে ফিরে আসার আগে এক বন্ধুর কাছে ২০ হাজার টাকা দেন ’দুবাই শপিং ফেস্টিভাল’ এ লটারির টিকিট কাটার জন্য। নিজের ভাগ্য পরখ করে দেখার একটা শেষ চেষ্টা করতে এই টাকা বিলাস তাঁর স্ত্রীর কাছে ধার নিয়েছিলেন। কিন্তু এ বার সুদিনের মুখ দেখল বিলাস। শুধু সুদিন নয়, রাতারাতি রাজা হয়ে গেলেন এই হায়দ্রাবাদের কৃষক। ২০ হাজার টাকা দিয়ে লটারির টিকিট কেটে ভারতীয় মূদ্রায় প্রায় ২৮ কোটি ৪২ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা জিতেছেন বিলাস।


তিনি ফোন করে জানান, লটারিতে ১.৫ কোটি দিরহাম (ভারতীয় মূদ্রায় প্রায় ২৮ কোটি ৪২ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা) জিতেছেন। অর্থাৎ, রাতারাতি কোটিপতি! এবার এই বিপুল পরিমাণ টাকা নিয়ে কী করবেন, তা এখনও ভেবে উঠতে পারেননি বিলাস।

উল্লেখ্য, বিলাসের কৃষিজীবী পরিবারে ধান বিক্রি করে সারা বছরে আয় মেরে কেটে ৩ লক্ষ টাকা। অভাবের এই সংসারে লটারির এই টাকা গুলো পেয়ে যেন আকাশের চাঁদ হাতে পেয়েছেন বিলাশ। বিলাস ও তাঁর স্ত্রী পদ্মার দুই মেয়ে।চার জনের সংসারে অনটন না থাকলেও তেমন একটা স্বচ্ছলতা ছিল না। তেলঙ্গানার জাকরনপল্লী গ্রামের বাসিন্দা বিলাস উপার্জনের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে দুবাই থেকে দেশে ফিরে আসেন। দেশে ফেরার ৪৫ দিনের মাথায় সুখবর দেন বিলাসের ওই বন্ধু