গ্রামের মানুষ বেশি সুখী: গবেষণা
কানাডার দুটি উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে।

দেশটির ভ্যানকুভার স্কুল অব ইকোনমিকস ও ম্যাকগিল ইউনিভার্সিটি এই গবেষণা করে। এই গবেষণায় কোন ধরনের সমাজ সবচেয়ে সুখী ও কেন তারা অন্যদের তুলনায় সুখী, তা বোঝার চেষ্টা করা হয়।

ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে জানানো হয়, ২০০৯ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত কানাডিয়ান কমিউনিটি হেলথ সার্ভে এবং জেনারেল সোশ্যাল সার্ভে নামের দুটি জরিপ থেকে গবেষকরা তথ্য সংগ্রহ করেন। এ প্রক্রিয়ায় চার লাখ ব্যক্তির তথ্য সংগ্রহ করা হয়।

গবেষণায় এক থেকে ১০ সীমার মধ্যে সুখের পরিমাপ করা হয়। এতে দেখা যায়, কানাডার মানুষরা গড়পড়তা যথেষ্ট সুখী। সবচেয়ে কম সুখী এলাকাতেও সুখে থাকার মাত্রা গড়ে ৭.০৪। আর সবচেয়ে সুখী এলাকায় এই মান হলো ৮.৯৬।

কী কারণে এসব এলাকার মানুষ সুখী, তা খুঁজতে গিয়ে গবেষকরা দেখেন, শহুরে ও গ্রাম্য এলাকার সুখের মাত্রায় রয়েছে বিস্তর ফারাক।

গবেষকরা দেখেন, বেশি ও কম সুখী এলাকাগুলোর মধ্যে গড় আয়, শিক্ষা, বেকারত্বের মাত্রা, সামাজিক নিরাপত্তা প্রায় একই রকম। কিন্তু এরপরও সুখের মাত্রায় তারতম্য হয়েছে। অর্থাৎ, এই বিষয়গুলোর ওপর সুখ নির্ভর করে না।

তাহলে কিসের ওপর নির্ভর করে মানুষের সুখ? দেখা যায়, গ্রাম এলাকার মানুষ সুখী বেশি হয়। যেসব এলাকায় জনসংখ্যার ঘনত্ব কম, বসবাসের খরচ কম ও স্থানীয় মানুষ বেশি- সেসব এলাকাতেই মানুষ সুখী বেশি হয়। এগুলো সবই গ্রাম এলাকার বৈশিষ্ট্য।

ফলাফলে দেখা যায় যে, গ্রামের সবচেয়ে অসুখী মানুষটিও শহরে থাকা সবচেয়ে সুখী মানুষটির তুলনায় বেশি সুখী।

গ্রাম এলাকায় বাস করলেই কেউ সুখী হবেন, এমনটি বলতে চাননি গবেষকরা। তবে তারা দেখিয়েছেন, সুখে থাকার সব অনুষঙ্গই আছে পল্লিতে।

প্রিয়