বাংলাদেশে বর্তমানে করোনার পরিস্থিতি দিন দিন হয়ে যাচ্ছে লাগামহীন। প্রতিনিয়তই দেশে করোনার রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। আর দেশে করোনা ঠেকাতে বেশ আশার আলো দেখিয়েছে দেশের বড় ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান রেমডেসিভির। জানা গেছে বেমসিভির নামে বাজারজাতকৃত বেক্সিমকোর রেমডেসিভির করোনাভাইরাসের রেপ্লিকেশন বা বংশ-বৃদ্ধি রোধে প্রথম কার্যকরী ওষুধ দাবি করা হচ্ছে। এই ওষুধ যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান এফডিএ সাময়িক অনুমোদন দিয়েছে। আর সেই লক্ষ্যে নিয়েই বেক্সিমকো ফার্মা রেমডেসিভির বাজারজাত করা শুরু করেছে।
বেক্সিমকো বাজারজাতকরণের প্রথম দিনে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য জাহিদ মালেক। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব মো: আলী নূর, ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ এবং সিএমএসডি’র পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো: শহিদুল্লাহ।

ওষুধের প্রথম ব্যাচ হস্তান্তরের সময় বেক্সিমকো ফার্মার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান এমপি বলেন, সরকারী হাসপাতালের গুরুতর অসুস্থ রোগীদের বেক্সিমকোর পক্ষ থেকে বিনামূল্যে রেমসিভির দেয়া হবে।

ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর বৃহস্পতিবার জরুরী ব্যবহারের জন্য বেমসিভির ব্র্যান্ড নামে বেক্সিমকোর রেমডিসিভিরের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে।

সাম্প্রতিক ক্লিনিক্যাল পরীক্ষায় রেমডেসিভির ব্যবহারে কোভিড-১৯ আক্রান্ত গুরুতর রোগীদের সুস্থ হয়ে উঠার প্রমান মিলেছে। জাপান সরকারও কোভিড-১৯ এ গুরুতর রোগীর ক্ষেত্রে জরুরি চিকিৎসা হিসেবে রেমডেসিভির ব্যবহারের সাময়িক অনুমতি প্রদান করেছে।

উল্লেখ্য লেনসেটের তথ্য অনুসারে, রেমডেসিভির প্রয়োগ করা হলে রোগীদের হাসপাতাল অবস্থান গড়ে ৫ দিন কমে যায়। এ দিকে করোনার রোগীর সংখ্যা দেশে ছাড়িয়ে গেছে ২৮ হাজারেরও বেশি। জানা গেছে গত ২৪ ঘন্টায় দেশে প্রথমবারের মত করোনা সনাক্তের রেকর্ড করেছে দেশ। গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা দাড়িয়েছে ১৭৭৩। এ ছাড়াও দেশে বেড়ে গেছে প্রাণহানীর সংখ্যা।



আরো পড়ুন

Error: No articles to display