দুর্নীতির মামলায় বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভুঁইয়া (খাগড়াছড়ি) ও সাবেক সাংসদ মো. আব্দুল ওহাবকে (ঝিনাইদহ -১) বিচারিক আদালতের দেওয়া সাজা স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে পৃথক দুটি আবেদন দায়ের করা হয়েছে। একইসঙ্গে আবেদন দুটির বিষয়ে শুনানির জন্য আগামী রবিবার (২৫ নভেম্বর) শুনানির দিন নির্ধারণ করেছেন আদালত। পৃথক দুই আবেদন দাখিলের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার (২২ নভেম্বর) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।
আদালতে ওয়াদুদ ভুঁইয়ার পক্ষে আবেদন দাখিল করেন আইনজীবী এ কে এম ফখরুল ইসলাম এবং মো. আবদুল ওহাবের পক্ষে আবেদন দাখিল করেন আইনজীবী মো. ওয়াজেদ আলী। এ সময় দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল হেলেনা বেগম চায়না।
এরআগে, জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন, তথ্য গোপন ও দুর্নীতির মাধ্যমে ৬ কোটি ৩৬ লাখ ২৯ হাজার ৩৫৪ টাকার সম্পদ অর্জন করায় ওয়াদুদ ভুঁইয়াকে চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্পেশাল জজ আদালত মোট ২০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানার রায় দেন। পরে ওয়াদুদ ভুঁইয়া এই মামলায় আপিল করে ২০০৯ সালের ২৮ এপ্রিল জামিন পান।
এছাড়া, জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ৯৩ লাখ ৩৬৯ টাকার সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপন করার দায়ে মো. আবদুল ওহাবকে যশোরের স্পেশাল জজ ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর ৮ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ৩০ হাজার টাকার জরিমানা দেন। পরে আবদুল ওহাব এই বিষয়ে আপিল করেন। এরপর ২০১৭ সালের ৬ ডিসেম্বর জামিন পান।
উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য সাজা স্থগিতের প্রয়োজন হওয়ায় এই নেতা দুটি পৃথক আবেদন আদালতে দাখিল করেন।
 banglatribune