খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিত করার প্রতিবাদে এবং তার মুক্তির দাবিতে ’প্রতীক’ অনশনে বসেছে বিএনপি।
ঢাকার গুলিস্তানে মহানগর নাট্যমঞ্চ প্রাঙ্গণে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এই অনশন চলবে। সারাদেশে জেলা সদরেও এ কর্মসূচি পালন করছেন বিএনপির নেতা-কর্মীরা।
ঢাকার কর্মসূচিতে বিএনপি নেতা-কর্মী-সমর্থকরা মহানগর নাট্যমঞ্চের বাইরে মাদুর বিছিয়ে অনশনে বসেছেন।
পেছনে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ছবি ও তার মুক্তির দাবি সম্বলিত ব্যানার টানানো হয়েছে। নেতা-কর্মীরা স্লোগান দিয়ে তার মুক্তির দাবি জানাচ্ছেন।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক, কবির মুরাদ, আতাউর রহমান ঢালী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, কেন্দ্রীয় নেতা নাজিমউদ্দিন আলম, আবদুস সালাম আজাদ, তাইফুল ইসলাম টিপু, নিপুন রায় চৌধুরীসহ কেন্দ্রীয় ও অঙ্গসংগঠনের শতাধিক নেতা-কর্মী সেখানে উপস্থিত আছেন।
দলের যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, "মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির নেতৃবৃন্দ পথে রয়েছেন। কিছুক্ষণের মধ্যে তারা অনশনস্থলে আসবেন। মহাসচিবের নির্দেশে নির্ধারিত সময়ে আমরা অনশন বসেছি।’’
বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী জানান, কেন্দ্রীয় এই কর্মসূচিতে ২০ দলীয় জোটসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষাবিদ, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, আইনজীবীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।
জোটের শরিক জাতীয় পার্টির (জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, জাগপার আসাদুর রহমান খান আসাদ ও পিপলস লীগের সৈয়দ মাহবুব হোসেন সকালেই অনশনস্থলে এসে সংহতি জানান।
এ কর্মসূচি ঘিরে মহানগর নাট্যমঞ্চের চারপাশে বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
ঢাকার জজ আদালত গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠানোর পর থেকে বিএনপি তার মুক্তির দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে আসছে।
এর আগে গত ১৪ ফ্রেরুয়ারি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে প্রতীক অনশনে বসেছিল দলটি।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর