বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ অধিবেশনে আজ বুধবার ১২ই ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত হয়েছে সম্পূরক প্রশ্ন প্রশ্নোত্তর পর্ব। এই পর্বে সংসদ সদস্যরা প্রশ্ন করে থাকেন এবং সংসদে বসে প্রধানমন্ত্রী তার উত্তর দিয়ে থাকেন। তবে আজ সম্পূরক প্রশ্নোত্তর পর্বে সংসদে ঘটে গেলো একটি হাস্যকর ঘটনা। সংসদে বিরোধি দল জাতীয় পার্টির হয়ে কিশোরগঞ্জ ৩ আসন থেকে নির্বাচন করা সংসদ সদস্য জিবুল হক চুন্নুকে ঘিরে ঘটেছে এই হাস্যরস মূলক ঘটনাটি।
কিশোরগঞ্জ-৩ এর সংসদ সদস্য, সংসদের বিরোধী দল জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চুন্নুকে ’কালার ব্লাইন্ড’ বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।


জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর পর্বে সম্পূরক প্রশ্ন করতে গিয়ে রসিকতা করে মুজিবুল হক চুন্নুর একটি মন্তব্যের জবাবে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

সম্পূরক প্রশ্ন করতে গিয়ে সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রীর রঙিন শাড়ির প্রতি ইঙ্গিত দিয়ে মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, ’সংসদ নেত্রীকে দেখে আজকে মনে হলো বসন্ত খুব শিগগিরই’।

সম্পূরক প্রশ্নের জবাব দেওয়ার শুরুতে সংসদ সদস্য মুজিবুল হককে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ’আমার মনে হয় সংসদ সদস্যের জানা উচিত বসন্তের যে রং সেটা বাসন্তী রং। আমি কিন্তু বাসন্তী রংয়ের কাপড় পরিনি। এখানে অনেক রঙ আছে, কালোও আছে।’

’আমার মনে হচ্ছে সংসদ সদস্য বোধ হয় কালার ব্লাইন্ড। অর্থাৎ রং কানা। এটার বাংলা করলে হয় রং কানা।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ’জানি না আজকে বাড়িতে যেয়ে ওনার কপালে কি আছে।’

সম্পূরক প্রশ্নে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সান্ধ্যকালীন কোর্স বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর পদক্ষেপ, প্রয়োজনে আইন করার বিষয়ে জানতে চান মুজিবুল হক চুন্নু।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ’সান্ধ্যকালীন ক্লাস নিয়ে যে সমস্যার কথা বলা হয়েছে সে বিষয়ে রাষ্ট্রপতিও বলেছেন, এ বিষয়ে যাতে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হয় সেটা আমি দেখছি। তবে এজন্য আইন করার প্রয়োজন নেই। এটা প্রাতষ্ঠানিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে। সব কিছুতে আইন করার প্রয়োজন নেই। এটা বিশ্ব বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ, ইউজিসি ব্যবস্থা নিতে পারে।’


উল্লেখ্য, এ ছাড়াও আজকের এই অধিবেশনে বেশ কয়েকটি সম্পূরক প্রশ্নের জবাব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তৃতীয় বারের মত তিনি সংসদে ক্ষমতাসিন দলের প্রধান হিসেবে যোগ দান করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ নিয়ে তিনি টানা তিন দায়িত্বও পালন করছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে। এ ছাড়াও তিনি বাংলাদেশের আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবেও টানা দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।