এদৃশ্য আগে কখনও দেখেনি ফ্রান্সবাসী। ’‌চমকে’‌ চমক যাকে বলে। মঙ্গলবার গোধুলি লগ্নে একেবারে ভিন্ন দৃশ্যে ধরা দিল আইফেল টাওয়ার। গগনচুম্বি টাওয়ারের মাথায় পড়ল বজ্রপাত। এক চমকেই ক্যামেরাবন্দী সেই ছবি। আর সেটি এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।
কেউ বলছেন এত সুন্দর টাওয়ারে বিদ্যুৎ কালি ঢেলে দিয়ে গেল। আবার কেউ বলছেন এমন ভয়ঙ্কর সুন্দর দৃশ্য পৃথিবীতে বিরল হয়ে থাকবে।
কিন্তু এতে যে কত বড় বিপদ ঘটতে পারতো তা হয়তো শিল্প বিলাসী প্যারিস আন্দাজ করতে পারছে না। ঝড়ের সতর্কতা আগেই দিয়েছিল আবহাওয়া অফিস। পূর্বাভাস মতই মঙ্গলবার বিকেল থেকেই শুরু হয় মেঘের গর্জন। সপ্তাহের দ্বিতীয় দিন অফিস আদালত সবই খোলা।
রাস্তায় ভিড়ও ছিল ভাল। এমনিতেই আপনভোলা শহর প্যারিস। যার যা মনে হয় তাই করেন। সেদিনও যে যার নিজের মতই ঘোরাফেরা করছিলেন।
আইফেল টাওয়ার দেখতে ভিড়ও করেছিলেন পর্যটকরা। বজ্রগর্ভ মেঘ ভর্তি আকাশ গগনচুম্বী আইফেল টাওয়ার থেকে কেমন লাগে দেখতে সেই বিরল অভিজ্ঞতার সাক্ষী হতেই আরও বেশি পর্যটক হাজির হয়েছিলেন। কিন্তু মেঘের গতি প্রকৃতি দেখে সেখানকার নিরাপত্তারক্ষীরা আর সাহস দেখাননি।
কয়েকঘণ্টার মধ্যেই খালি করে দেন এলাকা। হতাশ হয়ে পর্যটকরা বাড়ি ফিরে যান। মন খারাপই হোক আর হা-হুতাশই হোক নিরাপত্তারক্ষীদের এই উদ্যোগ যে তাদের প্রাণে বাঁচিয়েছে সেটা আইফেল টাওয়ারের ভাইরাল ছবি দেখে তারা এতক্ষণে বুঝে গিয়েছেন।  নাহলে কম করে হলেও কয়েক শ’‌ প্রাণ যেত সেদিন।