যাত্রীর জরুরি চিকিৎসা অথবা বিমানের যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে অনেক সময় অনেক বিমান জরুরি অবতরণে বাধ্য হয়। কিন্তু নেদারল্যান্ড থেকে স্পেনগামী ট্রান্সএভিয়ার একটি ফ্লাইট এমন একটি কারণে জরুরি অবতরণ করেছে যা শুনলে অনেকেই নাক ছিটকাতে পারেন।

ট্রান্সএভিয়া কর্তৃপক্ষ বলছে, এক যাত্রীর শরীরের অসহ্য দুর্গন্ধের কারণে তাদের ওই ফ্লাইট জরুরি অবতরণ করেছে। ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মিরর এক প্রতিবেদনে শুক্রবার এ তথ্য জানিয়েছে।

ফ্লাইট এইচভি৫৬৬৬ বিমানটি স্পেনের হলিডে দ্বীপ গ্রান ক্যানারিয়ার উদ্দেশে যাত্রা শুরু করেছিল। বিমানটি উড়াল দেয়ার পর এক ব্যক্তির অপরিষ্কার শরীর থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। এতে বিমানের যাত্রীদের অনেকেই বমি করতে শুরু করেন এবং মূর্ছাও যান।



ওই ব্যক্তির থেকে দুর্গন্ধ এতটাই উৎকট ছিল যে তা ঠেকাতে বোয়িং-৭৩৭ এর ক্রুরা তাকে টয়লেটে নিয়ে রাখেন। কিন্তু তাদের এই প্রচেষ্টা নিষ্ফল ব্যর্থ হয়। পরে বিমানের প্রধান পাইলট পর্তুগালের ফারগো শহরে বিমানটিকে জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন।

ফারগোর বিমানবন্দরে নামার পর বিমানটি থেকে যাত্রীকে বের করে আনা হয়। পরে মেডিক্যাল কর্মকর্তারা ওই যাত্রীকে একটি বাসে তুলেন।

বিমানের যাত্রী পায়েট ভ্যান হ্যাট বলেন, ওই ব্যক্তির শরীরের দুর্গন্ধ ছিল অসহনীয়। মনে হচ্ছিল, তিনি বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে গোসল করেন নাই। কয়েকজন যাত্রী দুর্গন্ধে অসুস্থ্য হয়ে পড়েন এবং বমি করেন।

তবে ট্রান্সএভিয়া এয়ারলাইন কর্তৃপক্ষ চিকিৎসা সংক্রান্ত কারণে জরুরি অবতরণের তথ্য নিশ্চিত করেছে। চিকিৎসা সংক্রান্ত ব্যাপারে বিমানটির গতিপথ পরিবর্তন করা হয়েছে। তবে এটা ঠিক যে ওই ব্যক্তির শরীরের গন্ধ কিছুটা তীব্র ছিল- বলেন এক মুখপাত্র।

News Page Below Ad