সোমবার ব্রাজিল-মেক্সিকোর ম্যাচ ছিল নেইমারময়। বিশ্বকাপের শুরু থেকেই সমালোচনার তীরে বিদ্ধ হওয়া নেইমার এদিন জবাব দিলেন মাঠে। মূলত নেইমারের নৈপুণ্যের কাছেই হেরেছে মধ্য আমেরিকার দলটি। তাই ম্যাচ শেষে নেইমারের ওপরই সব রাগ ঝাড়লেন মেক্সিকোর কোচ কার্লোস অসরিও। নেইমারকে রীতিমতো ভাঁড় বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।
রাশিয়ার বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বে নিজেকে ঠিকমতো মেলে ধরতে পারেননি নেইমার। উল্টো ওপর ফাউলের শিকার হওয়ার অভিনয় করে বিশ্বব্যাপী বদনাম কুড়িয়েছেন। বিরক্ত প্রতিপক্ষের খেলোয়াড় থেকে কোচ পর্যন্ত। কিন্তু সেই নেইমারই নক আউটপর্বের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দলের হাল ধরলেন। মেক্সিকোর বিপক্ষে ব্রাজিলের দুইটি গোলেই অবদান তার। একটি নিজে করেছেন। সতীর্থ রবার্তো ফিরমিনোকে দিয়ে অন্যটি করিয়েছেন। নেইমারের নৈপুণ্যের কাছে এই হার মেনে নিতে পারেননি মেক্সিকোর কোচ। তাই তার সব রাগ গিয়ে পড়ল নেইমারের ওপর, \’ম্যাচ আমাদের নিয়ন্ত্রণে ছিল। কিন্তু এটা অত্যন্ত লজ্জার যে একজনের জন্য অনেক সময় নষ্ট হয়েছে।\’?1530588916657
সেই \’একজন\’ যে নেইমার, তাতে কোন সন্দেহ নেই। কারণ গত ম্যাচে ৬ বার ফাউলের শিকার হয়েছেন তিনি। এবারের বিশ্বকাপে বেশিবার ফাউলের শিকারও নেইমার। এক পর্যায়ে নেইমারকে \’ভাঁড়\’ উল্লেখ করে অসরিও বলেছেন, \’একজন খেলোয়াড়ের জন্য ৪ মিনিট নষ্ট হয়েছে। এটা ভাল উদাহরণ নয়। এটা পুরুষদের খেলা, এখানে ভাঁড়ামির কোন স্থান নেই।\’
তবে এদিন মুখ খুলেছেন নেইমারও। এদিন ম্যাচের ৭২ মিনিটে ফাউলের শিকার হয়ে নেইমার পড়ে ছিলেন টেকনিক্যাল এরিয়ায়। বল ছিল তার পায়ের মাঝে। এসময় বলটি নিতে এসে মেক্সিকোর মিগেল লাইয়ুন বুটে দিয়ে আঘাত করেন নেইমারের পায়ে। সেই ঘটনা নিয়ে নেইমার বলেন, \’তারা আমার পায়ে পাড়া দিয়েছিল। এটা অন্যায় ছিল। আপনি এটা করতে পারেন না। তারা অনেক বেশি কথা বলেছে, যাচ্ছে তাই এবং বাড়ি ফিরে গেছে।\’
সূত্র : ইএসপিএন / poriborton

 
.