গত বিশ্বকাপেও ইডেন হ্যাজার্ড, ভিনসেন্ট কোম্পানি, থিবো কুর্তোয়াদের বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম দাবিদার ধরা হয়েছিল। কিন্ত আশা পূরণে ব্যর্থ হয় রেড ডেভিলসরা। ইউরো ২০১৬–তেও ওয়েলসের কাছে হেরে বিদায় নিতে হয়েছিল বেলজিয়ামকে। তবে সাম্প্রতিক পারফরমেন্সের জোরে এবার রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে রবার্তো মার্টিনেজের দলের কাছে বড় ধরনের সাফল্যের প্রত্যাশা করেছেন অনেকেই। বেলজিয়ামের এই দলটাকে ’গোল্ডেন জেনারেশন’ বলা হচ্ছে। বেলজিয়াম বিশ্বকাপ জিততে পারে, এমন কথাও শোনা গেছে ফুটবল বিশেষজ্ঞদের মুখে। বেলজিয়াম শেষপর্যন্ত বিশ্বকাপ জিতবে কিনা সেটা এখনই বলা সম্ভব নয়, কারণ কোয়ার্টার ফাইনালে কাজানের মাঠে তাদের প্রতিপক্ষ ব্রাজিল।
তবে এটুকু অবশ্যই বলা যায়, যেভাবে জাপানের বিরুদ্ধে দু’গোলে পিছিয়ে পড়েও নিজেদের লড়াকু চরিত্র তুলে ধরে ম্যাচ জিতেছে, তাতে বেলজিয়ামকে নিয়ে বাড়তি ভাবতে হবে তিতের ব্রাজিলকে। সবচেয়ে বড় কথা, জাপান জয়ের পর বেলজিয়াম কোচ ও ফুটবলাররা বেশ আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই বলেছেন, ’আমরা ব্রাজিলের জন্য তৈরি। ব্রাজিলের বিরুদ্ধে খেলব ভেবেই রোমাঞ্চিত। যারা সেরা দেবে, তারাই জিতবে।’
এবার সামনে ব্রাজিল, তবু কোনও চাপের লক্ষণ দেখাচ্ছেন না বেলজিয়াম কোচ মার্টিনেজ।বরং খুব স্বাভাবিক মেজাজে তাঁর প্রতিক্রিয়া, ’জাপানের বিরুদ্ধে পিছিয়ে পড়াটা যেমন চোখ খুলে দিয়েছে ফুটবলারদের, তেমন আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে। ব্রাজিল বিশ্বকাপের সেরা দল। ওরা ফেবারিট, আমরা আন্ডরডগ। তাই আমাদের ওপর কোনও চাপ নেই। হালকা মেজাজে সেরা দিতে মাঠে নামবে ফুটবলাররা ব্রাজিল ম্যাচে। ব্রাজিলকে হারিয়ে একটা অঘটনের চেষ্টা থাকবে।’
ঢাকাটাইমস

News Page Below Ad