সদ্য বিশ্ব জয়িদের খাতায় নিজেদের নাম তুললো বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অনূর্ধ্ব ১৯ দলটি জিতে নিয়েছে ক্রিকেটের সর্ব্বোচ অর্জনটি। আর এই কারনে সারা বিশ্বের ক্রিকেট বোদ্ধাদের কাছে প্রশংসায় ভাসছে বাংলাদেশের যুবারা। এই জয়ে বাংলাদেশের থেকে পাকিস্তান সব থেকে বেশি হয়েছে। তবে বাংলাদেশের এই জয়টা যেন অনেকাংশে মেনে নিতে পারেনি রাওয়াল পিন্ডি এক্সপ্রেস খ্যাত শোয়েব আখতার।
অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালের পরের দিন তার নিজের ইউটিউব চ্যানেলে শোয়েব একটি ভিডিও আপলোড করেন অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ ও বাংলাদেশের পাকিস্তান সিরিজ নিয়ে আলোচনা করার জন্য।

ভিডিওর শুরুতে বেশ বিমর্ষ কন্ঠেই বলেন, আজ অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ নিয়ে আলোচনা করবো। বাংলাদেশ ফাইনালে জিতেছে, ভারত হেরে গেছে তার আওয়াজে যেনো সদ্য নিজের রাজ্য হারানো এক রাজার বেদনা ফুটে উঠেছিলো ভারত হেরে গিয়েছে এই কথাটি বলতে গিয়ে।

বাংলাদেশ ফাইনালে জিতেছে, পুরো ভিডিওতে এইটুকু ছাড়া আর বাংলাদেশ ১৯ দলের নামও নেননি শোয়েব। অথচ ফাইনালে পরাজিত ভারত ও ভারতীয় দলের একাধিক খেলোয়াড়ের নাম ৩-৪ বার করে নিয়েছেন

শোয়েব অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপের ব্যাপারে বলতে গিয়ে বলেন, " ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ এই অনূর্ধ্ব ১৯ দলের তারকারাই। পাকিস্তানের রোহেল, হায়দার, আমির, হ্ুরেইরা এরা ভালো খেলোয়াড়। অপরদিকে ভারতের

যশস্বী জসওয়াল, বিশ্মোই, কাতিক ত্যাগি, সুশান্ত এরা খুব ভালো খেলোয়াড়। এইসব তরুনরাই ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। বিশ্বের সেরা অনূর্ধ্ব ১৯ খেলোয়াড়রা ছিলো এই আসরে। ভারতের যশত্বী কি অসাধারণ ক্রিকেটই না খেললো।

পুরো ভিডিও জুড়ে যেই সময়টুকু অনূর্ধ্ব ১৯ এর কথা বলেছেন পুরো সময়ই শোয়েবের মুখে ছিলো ভারতের খেলোয়াড়দের প্রশংসা। বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের প্রশংসা তো দুরে থাক, শোয়েব তাদের নামও নেননি। নিউজিল্যান্ডের খেলা দেখেননি এটা স্বীকার করেছেন৷

প্রসঙ্গত, সাকিব তামিম মুশফিকরা যখন বার বার ব্যার্থ হয়েছে ক্রিকেটের বিশ্ব আসরটি জয় তখন সেই অসাধ্য সাধনটি করে দেখালো আকবার, অভিষেক সাকিবরা। বিশ্ব জয় করে খুব শিঘ্রই তারা ফিরে আসবে দেশে। আর তাদেরকে দেশের মাটিতে বরণ করে নেবার জন্য তৈরি হচ্ছে নানা ধরনের প্রস্তুতি। সরকারের পক্ষ থেকেও তাদের খুশি করতে নেয়া হয়েছে নানা ধরনের উদ্যোগ।