বাংলাদেশের যুবারা জয় করেছে বিশ্বকাপ। আর এই বিশ্বকাপ জয় করেই তারা ফিরছেন দেশে। ভারতের বিপক্ষে জয় পেয়েই বাংলাদেশের যুবারা হয়েছে বিশ্ব সেরা। তবে এই জয়টা নিয়েও যেন আলোচনা সমালোচনা থামছেই না।ববিশেষ করে ম্যাচ জয়ের পর বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের উল্লাসটা মানতে পারেনি ভারতীয় ক্রিকেটাররা। আর এই নিয়েই বাধে যত বিপত্তি। পুরো ম্যাচ জুড়েই ছিলো ভারতী খেলোয়াড়দের স্লেজিং এর দাপট। তার পরেও ম্যাচ শেষে তারাই আবার ঘটায় বিপত্তি। বাংলাদেশের জয় উদযাপনের সময় আকবরদের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ে জড়িয়ে পড়েন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। আর এই বিষয়টির পুরো দোষটা বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের ঘাড়েই চাপায় ভারতীয়রা। এবার এই বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন ভারতের কিংবদন্তি দুই খেলোয়াড় কপিল দেব এবং আজহার উদ্দিন।
বিশ্বকাপজয়ী ভারতীয় তারকা কপিল দেব বলেন, ভারতীয় যেসব ক্রিকেটার মাঠে এ রকম অসদাচরণ করেছেন, তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেখতে চাই আমি। আশা করি, বিসিসিআই কঠোর পদক্ষেপ নেবে। প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়দের হেয় করার খেলা নয় ক্রিকেট। আগ্রাসী মনোভাবকে আমি স্বাগত জানাই। এখানে ভুলের কিছু নেই। কিন্তু বিধ্বংসী মানসিকতা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। প্রতিদ্বন্দ্বিতার কথা বলে নম্রতা-ভদ্রতার সীমারেখা অতিক্রম করা যায় না। আমি বলতে চাই, তারা যা করেছে তা অগ্রহণযোগ্য ও অমার্জনীয়। আমি মনে করি, বোর্ড এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে।

ভারতের অন্যতম সফল অধিনায়ক আজহার। আচরণবিধি ভঙ্গ সম্পর্কে বেশ ভালোভাবেই অবহিত তিনি। সাবেক এ ক্যাপ্টেন বলেন, আমি বিসিসিআইকে ভারতীয় যুবাদের কঠিন শাস্তি দেয়ার কথা বলব। একই সঙ্গে তাদের সাপোর্টিং স্টাফরা কি শিক্ষা দিয়েছে, সেই সম্পর্কেও জানতে চাই। এখনই পদক্ষেপ নিতে হবে। আমি তো মনে করি, বেশ দেরি হয়ে গেছে। এ রকম অনাকাঙ্ক্ষিত, অনভিপ্রেত ঘটনা জানার পরও বোর্ডের নিশ্চুপ থাকা উচিত হয়নি। খেলোয়াড়রা শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছে। উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে তাদের।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে যুবারা যে অবিষ্মরনীয় জয় এনে দিয়েছে তা বাংলাদেশের ইতিহাসে লেখা থাকবে স্বর্নাক্ষরে। আর বিশ্ব জয় করেই ইতিমধ্যেই জুনিয়র টাইগাররা পা রেখেচেহ বাংলাদেশে। তাদের এই জয় করে ফিরে আসাকে স্মরনীয় করে রাখতে বিসিবি নিয়েছে নানা ধরনের প্রস্তুতি। ইতিমধ্যেই জুনিয়র টাইগারদের জন্য করা হয়েছে বিশেষ বাসের ব্যবস্থা। এ ছাড়াও বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মত বিমানবন্দরে তাদের জন্য দেয়া হচ্ছে ওয়াটার স্যালুট।