সানিয়া মির্জা শোয়েব মালিক। দুজনেই বেশ পরিচিত দুটি নাম বিশ্বের খেলার জগতে। বলতে গেলে দু জনের পরিচিত ব্যাপক। একজন ভারতের বিখ্যাত নারী টেনিস খেলোয়ার আর অন্য জন পাকিস্তানের বিখ্যাত ও নাম করা ক্রিকেট খেলোয়ার শোয়েব মালিক। ১০ বছর আগে তাই দু জনে হয়েছিলেন এক। ভালোবেসে একে অপরকে করেছিলেন বিয়ে। তাদের ঘর আলো করে এখন রয়েছে এই পূত্র সন্তান। এখন একসঙ্গে মধুর সময় কাটানোর কথা তাদের। কিন্তু এ সব কিছুই নষ্ট করে দিল মহামারি করোনা।
বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো ভারত-পাকিস্তানেও জেঁকে বসেছে জীবনঘাতী এ ভাইরাস। মারণ এ রোগের প্রকোপ কমাতে দুই দেশেই এখন চলছে লকডাউন। স্বভাবতই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ফলে ইজহানকে নিয়ে শোয়েবের সঙ্গে দেখা করতে পারছেন না সানিয়া। এমন দুঃসময়ে চরম আশঙ্কায় দিন কাটাচ্ছেন তিনি। সেটা তার কণ্ঠেই শোনা গেল। ভারি গলায় ভারতীয় টেনিস তারকা বললেন, ইজহান আর কোনও দিন শোয়েবকে দেখতে পাবে কি না জানি না!

লকডাউনের কারণে ছেলে ইজহানকে নিয়ে হায়দরাবাদে গৃহবন্দি রয়েছেন সানিয়া। আর শোয়েব ঘরবন্দি আছেন শিয়ালকোটে। স্বাভাবিকভাবেই ছেলে ফের কবে বাবাকে দেখতে পাবে তা নিয়ে উদ্বিগ্ন মা।

সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে এ সঙ্কটময় পরিস্থিতি নিয়ে দুঃশ্চিন্তা প্রকাশ করেন সানিয়া। তিনি বলেন, শোয়েব পাকিস্তানে আটকে পড়েছে আর আমি এখানে (ভারতে)। এটার (লকডাউন) সঙ্গে ডিল করা খুবই কঠিন হয়ে উঠছে। কারণ, আমাদের ছোট একটি সন্তান আছে। আমি জানি না, ইজহান কবে আবার বাবাকে সামনাসামনি দেখার সুযোগ পাবে।

এ টেনিস রাণী বলেন, আমি ও শোয়েব-দুজনই খুব প্র্যাক্টিক্যাল (বাস্তববাদী)। তার মা পাকিস্তানে একা থাকেন। উনার বয়স ৬৫ বছর। তাই এসময়ে সেদেশেই ওর থাকাটা স্বাভাবিক। শুধু প্রার্থনা করছি, এই সংকট থেকে যেন আমরা সুস্থভাবে বেরিয়ে আসতে পারি।

প্রসঙ্গত, এ দিকে বিয়ে দুজন দুজনকে বিয়ে করলেও দুজনেরই প্রফেশন এখনো বেশ শক্ত অবস্থানে রয়েছে। শোয়েব এখনো চালিয়ে যাচ্ছেন খেলা। পাকিস্থানের জার্সিতে নিয়মিত খেলছেন তারা। আর সানিয়া মির্জাও নিয়মিত মাঠে ফিরছেন টেনিসের জন্য। নতুন করে সানিয়ার সাফল্যে সম্প্রতি যোগ হয়েছে আরেকটি পালক। প্রথম ভারতীয় টেনিস তারকা হিসেবে জিতেছেন ফেড কাপ হার্ট অ্যাওয়ার্ড। এ থেকে প্রাপ্ত সব অর্থ করোনা ত্রাণ তহবিলে দান করেছেন তিনি। এ কঠিন সময়ে দেশের মানুষের কথা ভুলেননি হায়দরাবাদি কন্যা।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display