বাংলাদেশে এখন করোনার কারনে চলছে একটি বড় রকমের দূর্যোগপূর্ন মুহুর্ত চলছে। দেশে এখন করোনার তান্ডবে সকলেই রয়েছে ঘর বন্দি। আর এই ঘরবন্দি সময় পাড় করছেন দেশের সকল ক্রিকেট তারকারাও। তবে এ ক্ষেত্রে বেশ ব্যতিক্রমধর্মী সময় কাটাচ্ছেন বাংলাদেশের বর্তমানের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। বলতে গেলে করোনায় বিপর্যস্ত দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের জন্য দারুণ আনন্দের উপলক্ষ এনে দিয়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। নিয়মিতভাবে চলছে তার ফেসবুক লাইভ। চমকের পর চমক উপহার দিয়েছেন। সেই লাইভে আসছেন দেশ ও বিদেশের নামী-দামি তারকারা।
তবে শুরু থেকেই দেশের এবং দেশের বাইরের লাখ লাখ দর্শকদের দাবি ছিল, বিশ্বসেরা অল-রাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে লাইভে আনা হোক। কিন্তু তামিম তার প্রিয়বন্ধু সম্পর্কে কিছু বলছিলেন না।

আজ নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের সঙ্গে আলাপ শেষে তামিমই তার সতীর্থ সাকিব সম্পর্কে সবকিছু পরিস্কার করেছেন। আগামী ২৩ মে (শনিবার) তামিমের ফেসবুক আলাপের শেষ দিন। শেষ পর্বটা স্মরণীয় করে রাখতে চেয়েছিলেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। চেয়েছিলেন সেদিন বাংলাদেশের ক্রিকেটের ’পঞ্চপাণ্ডব’ থাকবেন লাইভে। তবে সাকিব এতে আসছেন না। তিনি না আসলেও তামিমের সঙ্গে শেষ পর্বে মাশরাফি, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ থাকবেন।

মুশফিক, মাশরাফি, মাহমুদউল্লাহ, তাসকিন, রুবেল, সৌম্য, লিটন, মুমিনুল, নাসির-সবাই এসেছেন তামিমের লাইভে। তাহলে সাকিব নয় কেন? বন্ধুর না আসার কারণ সম্পর্কে তামিম বলেন, ’তার সাথে প্রায় ৭/৮ দিন আগে যোগাযোগ করেছিলাম। ৫ জন এক হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ব্যক্তিগত কারণে যোগ দিতে পারবে না সাকিব। এটা নিয়ে বেশি আলোচনা করার দরকার নাই। আর এটা আমাদের সবাইকে সম্মানও করা উচিত। তবে আমি অন্যদের ব্যাপারে কৃতজ্ঞ। আমরা ৫ জন থাকতে পারব না। তবে ৪ জন পারব।’


এ ছাড়াও সাকিব আল হাসান আপাতত রয়েছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। কিছু দিন আগে তিনি আবারও বাবা হয়েছেন। এ ছাড়াও খুলেছেন নিজের একটি ইউটিউব চ্যানেল। বর্তমানে তিনি আরো বেশি ব্যস্ত রয়েছেন দেশের করোনা মোকাবিলার কাজ নিয়ে। ইতিমধ্যে তার তৈরী সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশন থেকে দেশের করোনায় অনেক ক্ষতিগ্রস্থদের করা হয়েছে ব্যাপক আকারে সাহায্য।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display