বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, বিশ্বের অন্যন্য অনেক খ্যাত নামা ক্রিকেট বোর্ডের থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এগিয়ে আছে অর্থনৈতিক দিক দিয়ে। শুধু তা-ই নয়, অর্থনৈতিকভাবে অনেক ক্রিকেট খেলুড়ে দেশগুলোর চেয়েও এগিয়ে বিসিবি। গত তিন বছরে ঘরে তুলেছে ২৯ মিলিয়ন ডলার, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২৫০ কোটি টাকা।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display

বিসিবির বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দাবিও করলেন অনেক বড় দেশের তুলনায় আর্থিকভাবে বাংলাদেশ এগিয়ে আছে। করোনাকালে অনেক দেশই সংকটে পড়েছে। এমন অবস্থায় তারা আইসিসির কাছে আর্থিক সাহায্য চেয়েছে। সেখানে বিসিবি দেশের সব সংস্থাকে আর্থিক অনুদান দিয়েছে।

গত ৬ বছরে বিসিবির আয় তুলে ধরে বোর্ড সভাপতি বলেছেন, ’আর্থিকভাবে আমরা কোনও সমস্যায় পড়িনি, এটা বলতে পারবো। এটার পেছনের কারণও আছে। অনেক বড় বড় দেশের ক্রিকেট বোর্ড করোনা মহামারীর সময় আর্থিক ঝামেলায় পড়েছিল। ওরা আইসিসির কাছে লোন চাচ্ছে। পেয়েছেও। আমরা কিন্তু এমন কিছু করিনি। আমরা উল্টো সব খরচ বাদ দেওয়ার পরও, শুধু ক্রিকেট না, ক্রিকেটারদের সাহায্য করার পাশাপাশি অন্যান্য সংস্থা, খেলোয়াড়দের সাহায্য করেছি।’

এরপর পাপন দিয়েছেন গত ৬ বছরে নিজেদের আয়ের হিসাব, ’২০১২ থেকে ২০১৮- এই ছয় বছরে ৩৩ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি আমরা বোর্ড পেয়েছি স্পন্সরশিপ ও রাইটস থেকে। সেটা শেষ তিন বছরে ২৯ মিলিয়ন পেয়ে গেছি। কোভিড পরিস্থিতির পরও আমরা এটা করতে পেরেছি। এটা প্রমাণ করে যে, স্পন্সর ও রাইটস হোল্ডারদের বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ওপর আস্থা আছে। যা আমাদের জন্য খুব প্রয়োজনীয়।’

এ দিকে বিসিবি আপাতাত ব্যস্ত রয়েছে আসন্ন নিউজ্যালন্ডের সাথে খেলা নিয়ে। তবে বর্তমানে বিসিবির এক মাত্র লক্ষ্যে আসন্ন টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে। আর এই লক্ষ্যেই এখন কাজ করে যাচ্ছে বিসিবি।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display