করোনা ভাইরাসে এখনো নাজেহাল পুরো বিশ্ব। করোনা থেকে বাচঁতে তড়িঘড়ি করে আবিষ্কার করা হয়েছিল বেশ কয়েকটি টিকা।যার মধ্যে ডাব্লিউ এইচওর সবুক সংকেত পেয়েছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা/অক্সফোর্ডের টিকা । আর ইতিমধ্যে এই টিকা নিয়েছে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ। যার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশও। তবে প্রা’/ণ’/ঘা’/তী’/ করোনাভাইরাস প্রতিরোধে অ্যাস্ট্রাজেনেকা/অক্সফোর্ডের টিকা এ পর্যন্ত বিশ্বের ১৫ দেশ ব্যবহার স্থগিত করেছে।
এর মধ্যে এশিয়া মহাদেশের দুটি দেশ ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ড আর গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র হলো আফ্রিকা মহাদেশের। বাকি ১২ দেশ ইউরোপ মহাদেশের। খবর আলজাজিরার।

ইউরোপের যেসব দেশ এ পর্যন্ত অ্যস্ট্রাজেনেকার টিকা ব্যবহার স্থগিত করেছে, তারা হলো—নেদারল্যান্ডস, আইসল্যান্ড, ইতালি, বুলগেরিয়া, রোমানিয়া, ডেনমার্ক, নরওয়ে, অস্ট্রিয়া, এস্তোনিয়া, লাটভিয়া, লিথুয়ানিয়া ও লুক্সেমবার্গ।

এসব দেশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ব্যবহারের ফলে শরীরে রক্তজমাট বেঁধে যাচ্ছে। এ জন্য টিকা গ্রহণ স্থগিত রাখা হয়েছে।

তবে ইন্দোনেশিয়াতে এ টিকার ব্যবহার শুরুর আগেই তা স্থগিত করা হয়েছে। আবার কোনো কোনো দেশে মাত্র কয়েকজন কিছু শারীরিক সমস্যা দেখা দেওয়ায় অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা ব্যবহার স্থগিত করেছে।

এ পরিস্থিতিতে অ্যাস্ট্রাজেনেকা বলেছে— এই টিকা ব্যবহারের কারণে দেহে রক্ত জমাট বাঁধার কোনো প্রমাণ নেই।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ’ইউরোপিয়ান মেডিসিন এজেন্সি’ বা ইএমএ এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা ডব্লিউএইচও এই টিকার নিরাপত্তার বিষয়ে নিজেদের আস্থার কথা জানিয়েছে। তবে এই আশ্বাস বাণী খুব একটা কাজে আসেনি বলেই মনে হচ্ছে।

এ দিকে আবারো বেড়ে যাচ্ছে করোনার প্রকোপ। সেই সাথে নতুন করে আরো বেশ কয়েকটি করোনার নতুন ধরন হয়েছে সনাক্ত। যার ফলে এই করোনা নিয়ে ভাবতে হচ্ছে নতুন করে। বাংলাদেশেও হঠাৎ নতুন করে আবারো ছড়িয়ে পড়েছে করোনা।

আরো পড়ুন

Error: No articles to display